মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
মেঘনা নদীর তীর ঢাকা, চট্টগ্রাম বিভিন্ন বিভাগ ও জেলা থেকে বাস যোগে লক্ষ্মীপুর জেলার ঝুমুর বাসস্ট্যান্ডে নামতে হবে। তারপর কমলনগর উপজেলায় আসার জন্য মিনিবাস বা সিএনজি যোগে কমলনগর উপজেলার হাজির হাট বাজারে নামতে হবে এবং রিক্সা বা সিএনজি যোগে চর ফলকন ইউনিয়নের মেঘনানদীর তীরে যাওয়া যাবে। রুপালী ইলিশের চক চকে খনি এই আমাদের মেঘনানদী, হাজারো জেলেদের কর্ম কেত্র মেঘনা নদী। মেঘনা নদীতে রুপালী ইলিশ পাওয়া যায়। ঢাকা চট্টগ্রাম নৌযান জাহাজ চর ফলকন ইউনিয়নে রমেঘনা নদীর তীরবর্তী হয়ে চলাচল করে। ভোলা ও বরিশাল জেলার লোকজন লক্ষ্মীপুর ও কমলনগর চরফলকন হয়ে মেঘনা নদীতে ফেরী ও ষ্ট্রীমার যোগে চলাচল করে থাকে। চর ফলকন এলাকায় মেঘনা নদীতে জেলেদের মাছ ধরার দৃশ্য খুবই মনোরম ও সুন্দর লাগে। নদীর ঢেউয়ের মাতানো খেলা দেথে নিজের মন মুগ্ধ হয়ে যায়। নিজেকে অনেক আনন্দ দেওয়া যায়।
খ্যাতিমান সাংবাদিক ও লেখক সানাউল্যাহ নূরীর জন্মস্থান নূরীপুর কমলনগর উপজেলা সদর হাজির হাট থেকে দক্ষিণ দিকে মেঘনা সিনেমা হল হয়ে হাজির হাট-খায়ের হাট সড়কের পাশে রিক্সা ও সিএনজি যোগে নূরীপুর যাওয়া যায়।দারুচিনি দ্বীপের দেশেসহ ভ্রমনকাহিনী,ছড়া,গল্প,উপন্যাস,কবিতা,সংবাদসহ অসংখ্য কালজয়ী লেখার জন্য খ্যাতিমান লেখক ও সাংবাদিক ছানা উল্যাহ নূরীর জন্ম। চর ফলকনের নূরীপুর গ্রামে। লেখকের জন্মস্থানে পিতার নামে ছেলামত উল্যা ফাউন্ডেশন ও মাতার নামে বেগম মনসুরা দারুল ফালাহ মাদ্রাসাসহ প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশ চর ফলকনের দর্শনীয় স্থান।


Share with :

Facebook Twitter